বাজাজের নতুন বাইক বাজারে

দেশের শীর্ষস্থানীয় অটোমোবাইল আমদানি, প্রস্তুতকারী এবং বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠান উত্তরা মোটর্স বাজাজ পালসার এনএস১৬০ এফআই-এবিএস দেশের বাজারে উন্মোচন করলো।

রবিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বাজাজ অটো-এর নতুন এই মোটরসাইকেলটিতে ফুয়েল ইনজেকশন এবং অ্যান্টি-লক ব্রেকিং সিস্টেম প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। মোটরসাইকেলটি ক্রয় করা যাবে ২,৫৪,৯০০ টাকায়।

সেরা প্রযুক্তি সমৃদ্ধ পালসার এনএস১৬০ এফআই-এবিএস মোটরসাইকেলটিতে রয়েছে পেরিমিটার ফ্রেম, ৪-ভ্যালভ, ফুয়েল ইনজেকটেড ডিটিএস-আই ইঞ্জিন, আন্ডারবেলী একজস্ট, নাইট্রোক্স মনো সাসপেনশন, টিউবলেস টায়ার এবং স্ট্রিট ফাইটার নেকেড ডিজাইন, যা মোটরসাইকেলটিকে পরিণত করেছে একটি সত্যিকার স্পোর্টস বাইকে। মোটরসাইকেলটির ডিটিএস-আই ইঞ্জিন ৮৫০০ আরপিএমে ১৫.০২ পিএস এবং ৬০০০ আরপিএমে ১৪.১২ এনএম টর্কের শক্তি উৎপাদনে সক্ষম। হাইড্রোলিক দ্বারা পরিচালিত অ্যান্টি-লক ব্রেকিং সিস্টেম প্রযুক্তির মোটরসাইকেলটির সামনের চাকায় ২৬০ মি.মি. ডিস্ক ও পেছনের চাকায় ২৩০ মি.মি. ডিস্ক রয়েছে। বাইকটিতে সর্বোচ্চ ১২ লিটার পর্যন্ত তেল ধারণের ফুয়েল ট্যাঙ্ক রয়েছে যা দীর্ঘ পথ পাড়ি দেয়ার ক্ষেত্রে সহায়ক।

উন্মোচন অনুষ্ঠানে উত্তরা মোটর্সের চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর মতিউর রহমান বলেন, ৪ দশক ধরে বাজাজ বাংলাদেশে। আমরা ২০০২ সালে প্রথম স্পোর্টক বাইক বাংলাদেশে নিয়ে আসি। আমরা বাংলাদেশে নিজেরা উৎপাদন শুরু করেছি। এই বছর নতুন ৩ টি মডেল আসবে নিজেদের তৈরি। দেশে ১৫ টি শো-রুম রয়েছে।

অনুষ্ঠানে ভারতের বাজাজ অটো লিমিটেড-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট মিলিন্দ বাদে বলেন, ‌‘বিশ্বের দ্রুত বর্ধনশীল মোটরসাইকেল বাজারগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। পালসার মোটরসাইকেল সবসময় সবশ্রেণির মানুষের কথা বিবেচনা করে তৈরি হয়। ফুয়েল ইনজেকশন এবং অ্যান্টি-লক ব্রেকিং (এবিএস) সিস্টেম প্রযুক্তির মোটরসাইকেলটি বাংলাদেশের স্পোর্টস বাইকারদের জন্য দুর্দান্ত পারফরম্যান্স এবং কন্ট্রোলিং সুবিধা দেবে। এর বৈশিষ্ট্যগুলো চালকদের আত্মবিশ্বাসের সাথে যে কোন যাত্রা শুরু করতে এবং নির্ভয়ে চলাচলে প্রেরণা যোগাবে।’

আজ থেকে দেশব্যাপী উত্তরা মোটর্সের সবকটি শোরুম থেকে পালসার এনএস১৬০ এফআই-এবিএস প্রি-বুকিং দেয়া যাবে । প্রি-বুকিং দেয়া মোটরসাইকেলগুলো ২-৩ সপ্তাহের মধ্যে হস্তান্তর করা হবে।